Types of Phobia: ইংরেজিতে ভয়ের প্রকারভেদ

Posted on

আজকে আমরা কথা বলব Phobia নিয়ে। এটিকে ইংরেজিতে irrational fear বা অযৌক্তিক ভয় বলা হয়। Phobia শব্দটা একটি গ্রীক শব্দ phobos থেকে এসেছে, যার অর্থ ভয়। আমরা সবাই কোন কোন Phobia তে আক্রান্ত। যেমন আমি সাপকে অনেক ভয় পায়, যেটিকে ইংরেজিতে বলে Ophidiphobia। কেউ তেলাপোকাকে ভয় পায়, কেউ উচ্চতাকে ভয় পায় আবার কেউ প্লেনে চড়তে ভয় পায়। এরকম আরো অনেক Phobia আমাদের মনে রয়েছে। এবং প্রায় প্রত্যেকেই কোন একটা Phobia নিয়ে জীবন কাটায়। ত বন্ধুরা আজকে আমরা আলোচনা করব সেরকম কিছু Phobia নিয়ে। যাতে আপনার বুঝতে সুবিধা হয় আপনি কোন Phobia তে ভোগছেন। Phobia হচ্ছে noun এবং যে Phobia তে আক্রান্ত তাকে Phobic বলে।

Nyctophobia: Fear of darkness. (অন্ধকারের ভয়)
অন্ধকারকে অনেকে ভয় পায়। হঠাত আলো নিবে গেলে বা অন্ধকার হয়ে গেলে মনে হয় যেন কেউ পিছনে দাড়িয়ে আছে। যারা অন্ধকারকে ভয় পায় তাদেরকে বলে Nyctopobic.

Acrophobia: Fear of heights. (উচ্চতার ভয়)
খুব উচুতে উঠলে অনেকের পা কাঁপতে থাকে। মনে হয় যেন এখনই পড়ে যাবে। উচ্চতায় যাদের ভয় তাদেরকে বলে Acrophobic.

Agoraphobia: Fear of crowd. (ভীড়ের ভয়)
খুব ভীড় হলে মনে হয় সে ভীড়ে হারিয়ে যাবে। তাদেরকে বলে Agoraphobic.

Arachnophobia: Fear of spider. (মাকড়শার ভয়)
সাধারণত মেয়েরা এধরণের ভয়ে অভ্যস্ত। তাদেরকে বলে Arachnophobic.

Claustrophobia: Fear of small space. (ছোট জায়গার ভয়)
খুব ছোট জায়গা বা বন্ধ ঘরের মধ্যে ভয় পাওয়া। মনে হয় যেন নিশ্বাস বন্ধ হয়ে যাবে। এরকম যাদের হয় তাদেরকে Claustrophobic বলে।

Gamophobia: Fear of marriages. (বিয়ের ভয়)
যদিও এটা হাসির বিষয় তারপরও একটা নির্দিষ্ট বয়স পর্যন্ত অনেকের বিয়ে করতে ভয় পায়। যারা বিয়ে করতে ভয় পায় তাদেরকে Gamophobic বলে।

Xenophobia: Fear of strangers. (নতুন মানুষের ভয়)
অপরিচিত মানুষের সাথে কথা বলার ভয়। মনে হয় যেন কোন বিপদে ফেলবে। তাদেরকে Xenophobia বলে।

Phasmophobia:  Fear of ghosts. (ভুতের ভয়)
এই ভয় সবার কম বেশি থাকে। রাতে কোথাও একলা হাটলে বা নির্জন ভয়ঙ্কর কোন জায়গায় অনেকেই ভুতের ভয় পায়। এরকম যাদের হয় তাদেরকে Phasmophobia বলে।

Nomophobia: Fear of not have phone. (মোবাইল না থাকার ভয়)
হঠাত আপানর হাতের কাছে মোবাইল না পেলে যে ভয় মনের মধ্যে সৃষ্টি হয় তাকে Nomo phobia বলে।

Aerophobia: Fear of flying. (উড়ার ভয়)
প্লেনে চড়তে অনেকে ভয় পায়, তাদেরকে Aerophobic বলে।

Monophobia: Fear of being alone. (একা থাকার ভয়)
বাসায় বা কোন নির্জন জায়গায় একলা থাকলে যে ভয় পায় তাকে Monophobic বলে।

Glassophobia: Fear of speak in public. (মানুষের সামনে কথা বলার ভয়)
অনেকেই কোন মিটিংয়ে বা কয়েকজন মানুষের সামনে কথা বলতে ভয় পায়। তারা মনে করে লোকে কি ভাববে তার কথায়, যদি কোন ভুল কিছু বলে ফেলে। এরকম যারা ভাবে তাদেরকে Galssophobic বলে।

Equaphobia: Fear of water. (পানির ভয়)
যারা সাতার জানেনা তারা সবাই নদীর বা পুকুরের পানিতে ভয় পায়। তাদরেকে Equaphobic বলে।

Hemophobia: Fear of blood. (রক্তের ভয়)
অনেকেই রক্ত দেখলে ভয় পায়। এমন কি জ্ঞান হারিয়ে ফেলে। যারা রক্ত দেখলে ভয় পায় তাদেরকে Hemophobic বলে।

Ophidiphobia: Fear of snakes. (সাপের ভয়)
অনেকেই সাপকে ভয় পায়। সাপকে যারা ভয় পায় তাদেরকে Ophidiphobic বলে।

Philophobia: Fear of love. (ভালবাসার ভয়)
অনেকেই নতুন কাউকে ভালবাসতে ভয় পায়। মনে করে ভালবাসার মানুষ তাদের কষ্ট দিবে, ছেড়ে চলে যাবে এরকম আরো অনেক কারণে তারা ভালবাসাকে ভয় পায়। যারা ভালবাসাকে ভয় পায় তাদেরকে Philophobic বলে।

Gynophobia: Fear of women.  (মেয়ে ভীতি)
মেয়েদের ভয় পাওয়া। অনেক ছেলে আছে যারা ছেলেদের সামনে অনেক খুলামেলা কথা বলে কিন্তু কোন মেয়ের সামনে কথা বলতে গেলে চুপ হয়ে যায়। তাদরেকে Gynophobic বলে।

Genophobia: Fear of sex. (যৌনাতার ভয়)
অনেকেই যৌনাতেকে ভয় পায়। সাধারণত কিশোর বয়সে প্রায় সবারই যৌনতার প্রতি একটা ভীতি থাকে। এরকম ভয় যাদের থাকে তাদেরকে Genophobia বলে।

আমরা প্রায় প্রত্যেকেই কোন কোন Phobia তে আক্রান্ত। এবং Phobia নিয়ে এতটা চিন্তিত হওয়ার কিছু নেই। কাদাচিৎ আমরা এসব Phobia’র  মুখোমুখী হই। আজকে এই পর্যন্তই, সে পর্যন্ত ভাল থাকবেন। ধন্যবাদ।