আমাদের সবার কাছে ইংরেজিতে কথোপকথনের একটি ঝোঁক থাকে। কিন্তু ইংরেজিতে দ্রুত কথা বলতে পারিনা বলে আমরা ইংরেজিতে কথোপকথনের সাহস পায়না। আমাদের আশেপাশে অনেকেই আছে যারা ইংরেজিতে দ্রুত কথা বলতে পারে। অথচ তাদের কিন্তু বড় বড় ডিগ্রীও নেই। আবার অন্যদিকে অনেক বড় বড় ডিগ্রী অর্জন করা মানুষ ও রয়েছে যারা দ্রুত ইংরেজিতে কথা বলতে পারেনা। এটার মাধ্যমে একটা বিষয় পরিষ্কার যে, দ্রুত ইংরেজিতে কথোপকথনের জন্য বড় বড় ডিগ্রী অর্জন করতে হবে এরকম কোন কথা নেই। ত বন্ধুরা আজ আমরা নিয়ে এসেছি এমন ৭ টি উপায়, যে উপায় গুলো আপনাকে দ্রুত ইংরেজিতে কথোপকথনে সাহায্য করবে।

তাহলে চলুন শুরু করি।

এই লিংকে ক্লিক করে জেনে নিন আপনি যেসব ইংরেজি শব্দগুলো ভুল উচ্চারণ করে আসছেন

দ্রুত ইংরেজিতে কথা বলার জন্য আমাদের কয়েকটি বেসিক যেগ্যতা থাকা দরকার। যেমন:
Reading: আপনাকে খুব দ্রুত না হলেও বাধাহীনভাবে ইংরেজি পড়তে জানতে হবে।
writing: ইংরেজি লিখতে জানতে হবে।
listening: ইংরেজি শোনার পর সেটা বুঝতে হবে।
speaking: ইরেজিতে মোটামুটি কথা বলতে জানতে হবে।॥
confidence: আর সবচেয়ে বেশি যেট প্রয়োজন, সেটা হল আত্মবিশ^াস।

. আপনার ইংরেজি সঠিক হচ্ছে কিনা সেটা মাথা থেকে সরিয়ে নিন:

আমরা আমাদের স্কুল, কলেজ এবং ইউনিভাসির্টিতে সবসময় সঠিক ইংরেজি শিখে আসছি।  আমরা আমাদের পরীক্ষার খাতায় যখন ইংরেজি লিখি তখন সঠিক ইংরেজিটা শিখেই লিখি। তাই আমাদের মনে একটা বদ্ধমূল ধারণা তৈরি হয়ে গিয়েছে যে, ইংরেজি মানেই সঠিক এবং নির্ভূল এমন কিছু। অথচ আমরা আমাদের বাংলার বেলায়ও অনেক সময় বাক্যগঠনে ভুল করে থাকি। ইংরেজি মানেই যে একশ ভাগ সঠিক হতে হবে তা না। হ্যা, এটা সত্য যে, আমরা যখন ইংরেজি লিখি সেটা সঠিক হওয়া জরুরী। কিন্তু আমরা যখন ইংরেজিতে কথা বলি সেখানে ভুল করাটা এমন কোন মারাত্বক অপরাধ নয়। ইংরেজি যেহতেু আমাদের মাতৃভাষা নয়, বিদেশি একটা ভাষা। সেটা বলার ক্ষেত্রে আমাদের সঠিক ইংরেজি হচ্ছে কিনা চিন্তা করার প্রয়োজন নেই। বরং ভুল ইংরেজি হওয়াটাই দরকার যেন আমরা সঠিক ইংরেজিটা শিখে নিতে পারি। প্রথম পথম আপনি যদি ভুল ইংরেজি বলার ভয়ে ইংরেজিতে কথা বলার চেষ্ট না করেন তাহলে আপনার কখনই ইংরেজিতে দ্রুত কথা বলা হবেনা। এমন কি ভুল ইংরেজি বলাতে আপনার লজ্জিত হওয়ারও কোন কারণ নেই। ইংরেজি যাদের দ্বিতীয় ভাষা তারা সবাই একশ ভাগ সঠিক ইংরেজি বলতে পারেনা। ইংরেজি কথোপকথনের সময় সেই ইংরেজি ভুল হচ্ছে নাকি সঠিক হচ্ছে সেটার চিন্তা করা যাবেন।

. আপনার প্রয়োজনীয় ইংরেজি শব্দগুলোতে গুরুত্ব দিন:

আমরা জানি যে, একটি ভাষা লক্ষ কোটি শব্দ নিয়ে গঠিত হয়। ইংরেজিতেও তার ব্যতিক্রম নেই। ইংরেজিতেও লক্ষ কোটি শব্দ রয়েছে। যারা সবসময় ইংরেজিতে কথা বলে তারা সেসব ইংরেজি শব্দের ১০%-১৫% ইংরেজি শব্দ ব্যবহার করে থাকে। এগুলো দিয়েই তারা তাদের দৈনন্দিন কাজ সারে, একে অন্যের সাথে যোগাযোগ করে, কথা বলে, নিজের মনের ভাব প্রকাশ করে। অন্যদিকে আমরা বই বা ম্যাগাজিনে ২৩%-২৫% ইংরেজি শব্দ দেখি বা পড়ে থাকি। ত আপনি যদি ইংরেজি শব্দের মধ্যে ১০% ইংরেজি শব্দ জেনে থাকেন তাহলে আমি বলব আপনি ইংরেজিতে অনেক ভাল। ধরুন আপনি একজন বই ব্যবসায়ী। আপনি সবমসয় চেষ্টা করবেন বই সম্পর্কিত ইংরেজি শব্দ গুলো শিখতে। এবং সেগুলো বাক্য আকারে আপনার ব্যবসায়িক ক্ষেত্রে ব্যবহার করতে। এরকম আপনার পেশার সাথে সম্পর্কিত ইংরেজিগুলো আগে জেনে নিন। তারপর আস্তে আস্তে অন্য বিষয়েও স্বাভাবিকভাবে আপনার ইংরেজিতে দক্ষতা চলে আসবে।

. ভেঙ্গে ভেঙ্গে ইংরেজি বাক্য গঠন করুন:

আপনাকে যদি একটি বাড়ি বানানোর কাজ দেওয়া হয় যেখানে বাড়ি বানানো সম্পর্কে আপনার আগের কোন ধারণাই নেই। তাহলে একটি বাড়ি বানানো আপনার পক্ষে অসম্ভব। যদি এমন হয় যে, আপনাকে রেডি করা দেওয়াল দেওয়া হল, ছাদ দেওয়া হল, দরজা দেওয়া হল আর আপনি সেগুলো আস্তে আস্তে একটার সাথে একটা যোগ করে বাড়ি বানিয়ে ফেললেন। সেটা অনেকটা সহজ হবেনা? ইংরেজিতে ও যদি আমরা এভাবে চিন্তা করি তাহলে দ্রুত ইংরেজি বলটা সহজ হয়ে যাবে। ধরুন আপনি একটা ইংরেজি বাক্য তৈরি করলেন সেখান থেকে দু একটা শব্দ তুলে আপনার প্রয়োজন অনুযায়ী নতুন শব্দ বসিয়ে দিলেন।

যেমন: I went for a walk yesterday.
I went for lecture yesterday.
He went for a game yesterday.
উপরে দেখুন তিনটা বক্যের মধ্যে শুধু মাত্র বোল্ড করা শব্দ গুলো পরিবর্তন করেই একটা বাক্যকে তিনটি বাক্যে পরিবর্তন করা হয়েছে।
এটি আসলে সহজ যদি আপনি এরকম চেষ্টা করেন।

. আপনার জীবনের স্বাভাবিক কিছু বিষয় নিয়ে চর্চা করুন:

আমাদের সবার ক্ষেত্রেই কিছু কিছু বাক্য রয়েছে যেগুলো আমরা স্বাভাবিকভাবে সব কাজেই ব্যবহার করে থাকি। যেমন আমরা নিজের সম্পর্কে, নিজের পছন্দের সম্পর্কে, নিজের উদ্দেশ্য সম্পর্কে এরকম আরো অনেক বিষয় সম্পর্কে, যেগুলো নিয়ে আমরা প্রায় সবসময় কথা বলে থাকি। এসব প্রত্যেকটা বিষয়ের উপর ৪-৫টি বাক্য তৈরি করুন। এবং এগুলো নিয়ে আপনার পরিচিত ইংরেজিতে ভাল এমন কারো সাথে আলাপ করুন। প্রথম প্রথম এগুলো বলতে গেলে মুখস্ত করে পড়ার মত শোনাবে। কিন্তু আপনি এগুলো নিয়মিত বলতে থাকলে সুন্দর শোনাবে। আর আপনি যদি ইংরেজিতে কথোপকথনের জোন সঙ্গী না পান তাহলে নিজে নিজে আয়নার সামনে নিজের সাথেই কথা বলুন।

. ইংরেজিতে কথা বলা শুরু করুন:

ধরুন আপনি ইউটিউবে কিভাবে বিরিয়ানি রান্না করতে হয় সেটা নিয়ে একটা ভিডিও দেখে বিরিয়ানি রান্না করতে শুরু করে দিলেন। দেখবেন যে ভিডিওর বিরিয়ানি আর আপনার রান্না করা বিরিয়ানির মধ্যে অনেক পার্থক্য। ইংরেজিতেও ঠিক একি রকম। আপনি আপনার ইংরেজি উন্নত করার জন্য ইংরেজি বই পড়লেন, প্রচুর ইংরেজি শব্দ শিখলেন, ইংরেজি মুভি দেখলেন তারপর ও আপনার ইংরেজি ঐ বিরিয়ানির মতই হবে। ত ইংরেজিতে দ্রুত কথোপকথনের জন্য একমাত্র উপায় হচ্ছে আপনাকে ইংরেজিতে কথা বলতে হবে। আমি আবার বই পড়া, ইংরেজি শব্দ শিখা, মুভি দেখা এসব বিষয়কে নিরুৎসাহিত করছিনা। ইংরেজি বলার পাশাপাশি এসব বিষয় গুলো ও চালিয়ে যান। এতে আপনার ইংরেজি আরো সুন্দর হবে।

. দ্রুত এবং আওয়াজ করে ইংরেজি পড়ুন:

আপনি যখন কোন ইংরেজি বই বা ম্যাগাজিন পড়বেন তখন দ্রুত এবং আওয়াজ করে পড়ার চেষ্টা করুন। আপনার জিভ, ঠোট, মুখ এগুলোকেও দ্রুত ইংরেজি বলতে অভ্যস্ত করে তুলুন। ত আপনার করতে হবে কি, এক পৃষ্টার একটা ইংরেজি প্যারাগ্রাফ নিন এবং সেটা পড়ুন। এর সাথে একটা ঘড়ি যুক্ত করুন যাতে পরিমাপ করতে পারেন পুরো প্যারাগ্রাফটা পড়তে আপনার কতক্ষণ সময় লাগে। এরপর আবার পড়তে থাকুন একি পদ্ধতিতে। বারবার পড়তে থাকুন আর ঘড়িতে সময় দেখুন। দেখবেন একি প্যারাগ্রাফ আপনি প্রথমবারে চেয়ে কম সময়ে পড়তে পেরেছেন। এরকম করে দেখবেন ৫ম এবং ৬ষ্ট বারে আপনার প্রথমবারের চেয়ে অনেক কম সময়ে একি প্যারাগ্রাফ পড়ে শেষ করতে পারবেন।

. ইংরেজি কপি করুন:

আপনি কারো মুখে ইংরেজি শোনলে যেমন কোন মুভি বা কোন বই পড়ার সময় একটা বাক্য যদি আপনার ভাল লাগে বা মনে হয় বাক্যটি আপনি আপনার দৈনন্দিন কাজে ব্যবাহার করতে পারবেন। তাহলে সেই বাক্য বারবার পড়ুন। বাক্যটি মাথায় সেট করে ফেলুন। দেখবেন কারো সাথে সেই বাক্য বলার প্রয়োজন হলে স্বাভাবিকভাবেই বাক্যটা আপনার মুখে চলে আসবে। সেই বাক্যের জন্য আপনাকে ভাবতে হবেনা।

ত বন্ধুরা আজ আমরা জনলাম ইংরেজিতে দ্রুত কথা বলার ৭টি সহজ উপায়। উপরের উপায় গুলো নিয়মিত মানার চেষ্টা করুন একমাস পর ইংরেজিতে আপনার পরিবর্তন আপনি নিজেই বুঝতে পারবেন। আজ এতুটুকুই ভাল থাকবেন। ধন্যবাদ।